চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজের শেষ ম্যাচে ব্রিসবেনে মুখোমুখি হবে ভারত এবং অস্ট্রেলিয়া। মাঠে বল গড়ানোর আগেই অবশ্যই নানা কারণে চর্চার বিষয় হয়ে উঠেছে ব্রিসবেন টেস্ট ম্যাচ। এই ম্যাচে যে দলই জিতবে, সিরিজ তাদের পকেটে যাবে। এহেন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে জসপ্রীত বুমরাহ, হনুমা বিহারী সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়কে চোটের কারণে হারিয়ে চাপের মুখে ভারতীয় শিবির। এদিকে সম্প্রতি ব্রিসবেনে পাওয়া গিয়েছে করোনাভাইরাসের নতুন স্ট্রেন। ইউনাইটেড কিংডম থেকে আসা এক ব্যক্তির থেকে এই ভাইরাস ছড়িয়েছে। পরিস্থিতির মোকাবিলায় কুইন্সল্যান্ড সেস্ট সহ ব্রিসবেনে কড়া লকডাউন জারি করা হয়েছে। এই কারণেই চতুর্থ টেস্টের জন্য ব্রিসবেনে যেতে রাজি ছিল না ভারতীয় দল। তবে শেষপর্যন্ত অজিঙ্কে রাহানের নেতৃত্বাধীন দল যেতে বাধ্য হয়। সোফিটেল নামে শহরের একটি পাঁচতারা হোটেলে রয়েছে টিম ইন্ডিয়া।

তবে লকডাউনের কারণে হোটেলে গিয়েও বিপাকে পড়েছেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। লকডাউনের কারণে ওই হোটেলে এখন ভারতীয় ক্রিকেটাররা ছাড়া আর কোনো গেস্ট নেই বলে খবর। অনেকে বলেছেন, বাস্তবিক কারণেই এই পাঁচতারা হোটেল এখন টিম ইন্ডিয়ার খেলোয়াড়দের কাছে এক প্রকার জেল বলে মনে হচ্ছে। শুধু তাই নয়, লকডাউনের কারণে হোটেলে রয়েছে কর্মীদের অভাব। তাই টিম ইন্ডিয়ার ক্রিকেটারদের নিজেদের টয়লেট নিজেদেরকেই পরিষ্কার করতে হবে বলে সংবাদমাধ্যমের রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক টিম ইন্ডিয়ার একটি সূত্র সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছে, আমরা নিজেদের রুমে একপ্রকার বন্দি অবস্থায় দিন কাটাচ্ছি। আমাদের নিজেদের বিছানাপত্র নিজেদেরকেই করতে হচ্ছে, এমনকি নিজেদের টয়লেট পর্যন্ত পরিষ্কার করতে হচ্ছে। নিকটবর্তী একটি ভারতীয় রেস্তোঁরা থেকে আমাদের খাবার আসছে। আমাদের জন্য নির্ধারিত ফ্লোরের বাইরে আমরা যেতে পারছি না। আমরা ছাড়া গোটা হোটেলে আর কেউ নেই। তবে আমরা হোটেলের সমস্ত সুবিধা ব্যবহার করতে পারছি না। যেমন আমরা সুইমিং পুল এবং জিমে যেতে পারছি না। হোটেলের সমস্ত ক্যাফে এবং রেস্তোঁরা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

খুব স্বাভাবিকভাবেই, ব্রিসবেনের হোটেলের এই পরিস্থিতি নিয়ে খুশি নয় টিম ইন্ডিয়া। ম্যানেজমেন্টের তরফ থেকে ইতিমধ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বিসিসিআইয়ের কাছে অনুরোধ পাঠানো হয়েছে।

ফেসিলিটির অভাব নিয়ে বিসিসিআই কর্তাদের কাছে অভিযোগ করেছে টিম ইন্ডিয়া

টিম ইন্ডিয়ার অভিযোগ, ব্রিসবেনে টিম হোটেলে তাদের যে সমস্ত সুবিধা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, তা অনেক কিছুই দেওয়া হচ্ছে না। ম্যানেজমেন্টের তরফ থেকে সেই বার্তা বোর্ডের কাছে পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here