আজ, ৬ জানুয়ারি, বুধবার, হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাবেন ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেট অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। বাড়িতে জিম করার সময় অজ্ঞান হয়ে যাওয়ার পর তাকে কলকাতায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে গত শনিবার ভরতি করা হয়। সংবাদমাধ্যমের রিপোর্ট থেকে পরে জানা যায়, দাদার মাইল্ড কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয়েছিল। এছাড়া তার করোনারি আর্টারিতে ব্লকেজ ছিল বলে জানা যায়। পরে ওই হাসপাতালে তার অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি হয়। তার আরও একটি অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি হবে বলে জানা গিয়েছিল। তবে নয়জন সিনিয়র চিকিৎসকের একটি টিম পরে জানায়, দাদা এখন যথেষ্ট ফিট এবং সুস্থ। দ্বিতীয় অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি পরে হতে পারে। এদিকে দাদার শরীর নিয়ে আশার খবর জানিয়েছেন বিখ্যাত কার্ডিওলজিস্ট ডা. দেবী শেট্টি। দাদা অসুস্থ হওয়ার পর থেকেই তিনি একটি ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্ম থেকে সৌরভের চিকিৎসার উপর নজর রাখছিলেন। মঙ্গলবার তিনি হাসপাতালে গিয়ে এই প্রাক্তন ক্রিকেটারের সাথে দেখা করেন।

এর পরই বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের স্বাস্থ্য নিয়ে ভালো খবর দিয়েছেন শেট্টি। তিনি বলেন, সৌরভের হার্ট খুব ভালো অবস্থায় রয়েছে। দাদার হার্ট এখন ২০ বছরের তরুণের মতোই তাজা। চিন্তার কোনো কারণ নেই। একধাপ এগিয়ে গিয়ে ডা. শেট্টি বলেন, দাদার যে অসুস্থতা তা খুব সাধারণ ব্যাপার। একটা নির্দিষ্ট বয়সের পর অধিকাংশ ভারতীয়র এই অসুখ হয়। দাদার ক্ষেত্রে যেটা সবচেয়ে ভালো হয়েছে যে তাকে সঠিক সময়, সঠিক জায়গায় চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসা হয়েছে।

ইএসপিএন ক্রিকইনফোতে প্রকাশিত ডা. শেট্টির বক্তব্য, সৌরভের বড় কোনো সমস্যাই হয়নি। করোনারি আর্টারি ব্লক হয়ে যাওয়া একটি সাধারণ সমস্যা, যা অধিকাংশ ভারতীয় হয়ে থাকে, কোনো না কোনো সময়ে। তার হার্টে কী বড় ধরণের ক্ষতি হয়েছে? না। তার হার্টে ব্লকেজ ছিল এবং সেই কারণে তিনি অস্বস্তি বোধ করছিলেন। তবে তিনি সঠিক সময়ে, সঠিক জায়গায় এসেছেন। তার সঠিক চিকিৎসা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here