দ্য বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া বা বিসিসিআই হল বিশ্বের অন্যতম ধনী ক্রিকেট বোর্ড। সর্বশেষ রিপোর্ট যদি সত্যি হয়, তাহলে দেখা যাচ্ছে বিসিসিআইয়ের মোট মূল্য ১৪,৪৮৯ কোটি টাকা। ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষের শেষে এমনটাই হিসাব দাঁড়িয়েছে। ওই অর্থবর্ষে বিসিসিআই ২,৫৯৭.১৯ কোটি টাকা রোজগার করেছে বলে ক্রিকট্র্যাকারের একটি প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে। ২০১৮-১৯ আর্থিক বর্ষের ব্যালেন্স শিট এখনও জনসমক্ষে আনা হয়নি। এছাড়া ২০১৯-২০ আর্থিক বর্ষের রোজগারও এখনও প্রকাশ করেনি বিসিসিআই।

ক্রিকট্র্যাকারের প্রতিবেদন থেকে আরও জানা গিয়েছে, ২০১৮ সালে কেবলমাত্র “রোজগার” বাবদ বিসিসিআইয়ের রোজগার হয়েছে ৪,০১৭.১১ কোটি টাকা। এবং এই অর্থের অর্ধেকের বেশি এসেছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ থেকে, যার পরিমাণ ২,৪০৭.৪৬ কোটি। বিসিসিআইয়ের রোজগারের দ্বিতীয় বড় উৎস হল মিডিয়া সত্ত্বাধিকার বিক্রয়। এই খাতে বোর্ডের রোজগার হয়েছে প্রায় ৮২৮ কোটি টাকা। অন্যদিকে খরচের দিকেও চোখ রাখা যাক। ২০১৮-১৯ আর্থিক বর্ষে বিসিসিআইয়ের খরচ হয়েছে প্রায় ১,৫৯২.১২ কোটি টাকা। এছাড়া ২০১৮-১৯ মরসুমে আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট আয়োজনের মাধ্যমে ৪৪৬.২৬ কোটি টাকা রোজগার করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। অন্যদিকে ব্যাঙ্ক থেকে সুদ বাবদ বোর্ড পেয়েছে প্রায় ২৯০.৭৩ কোটি টাকা। আইসিসি/ এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল থেকে রোজগার হয়েছে ২৫.০৩ কোটি টাকা।

স্পনসরশিপ থেকেও মোটা টাকা রোজগার করে বিসিসিআই। বোর্ডের স্পনসরের মধ্যে রয়েছে স্টার স্পোর্টস (ব্রডকাস্টার), বাইজুস (টিম স্পনসর), পেটিএম (টাইটল স্পনসর), ড্রিম 11, হিউন্ডাই এবং অম্বুজা সিমেন্ট (পার্টনার) এবং কিট স্পনসর (এমপিএল স্পোর্টস)। বিসিসিআইয়ের সম্পদের মধ্যে রয়েছে এটির ব্যাঙ্ক ব্যালেন্স, ফিক্সড ডিপোজিট এবং স্থায়ী সম্পত্তি ইত্যাদি। বিসিসিআইয়ের মোট ১৪,৪৮৯.৮০ কোটি টাকা সম্পদের মধ্যে রয়েছে ৩,৯০৬.৮৮ কোটি টাকার জেনারেল ফান্ড এবং ইয়ারমার্কড ফান্ড ৩,২৪৩.৪১ কোটি টাকা। আগামী ছয় মাসের মধ্যে বিসিসিআই ২০১৯-২০ মরসুমের ব্যালেন্স শিট জমা দিতে পারে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) এবং এটির সদস্যদের কাছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here